NET EXAM সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা

0
197
NET EXAM সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা
NET EXAM সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা

আসসালামু আলাইকুম। আমার প্রিয় পাঠক বন্ধুরা আশা করি আপনারা সবাই ভাল আছেন। আজ আমি আপনাদের কাছে কিছু গুরুত্বপর্ন বিষয় নিয়ে এসেছি। আর সেই বিষয় গুলো হলো net exam, UGC, JRF কি? আজ আমি আপনাদে কাছে এই Net exam সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করবো। তাহলে বন্ধুরা নিচে এই net exam এর তথ্য গুলো আলোচনা করা হল..

NET EXAM সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা তুলে ধরা হলো-

আপনি যদি কলেজের প্রফেসর কিংবা PhD করতে চান। তাহলে এই Net exam দিয়ে আপনি করতে পারবেন। এই Net exam কি, UGC কি, JRF কি সে সম্পর্কে এখন আলোচনা করবো-

বন্ধুরা আপনারা যদি এই exam দিতে চান বা এই exam সম্পর্কে জানতে চান। তাহলে এই লেখাটি ভালভাবে পড়ুন। আর অবশ্যই মনোযোগ দিয়ে পড়বেন। তাহলে বন্ধুরা প্রথমে আমরা জেনে নেব UGC কি?

UGC কিঃ

UGC হচ্ছে united grants commission প্রতি বছর দুই বার করে এই UGC এর পক্ষ থেকে NTA বা national testing agency দ্বারা এই Net exam চুক্তি করে থাকে। যেখানে এই exam qualify করার পর আপনি যদি সহকারী প্রফেসরের চাকুরী করতে চান। তাহলে আপনি সেটি করতে পারবেন। অথবা আপনি যদি higher education বা PhD করতে চান সেটাও করতে পারবেন।

এই net exam প্রকৃতপক্ষে national level এর exam, যেখানে এই exam টি বিষয় ভিত্তিক হয়ে থাকে। তার মানে যে বিষয় নিয়ে আপনি পড়াশুনা করেছেন। আর সেই বিষয়ের উপর আপনি কত টুকু দক্ষ তার উপর ভিত্তি করে এই পরীক্ষাটি নেওয়া হয়। এই UGC net exam এ সব থেকে যারা বেশি নাম্বার পায়। তাদের কে JRF প্রদান করা হয়। আর এই JRF মানে হচ্ছে junior research fellowship।

প্রকৃতপক্ষে যারা এই নেট এক্সাম দেয় তারাই পরে PhD করতে চায়। আর তারা যদি PhD করার সময় নেট এক্সাম এ JRF পেয়ে যায়। তাহলে সে স্কলারশীপ পেয়ে যায়। অর্থ্যাৎ JRF পাওয়া শিক্ষার্থী প্রতি মাসে প্রায় ২৫-৩০ হাজার টাকা পেয়ে যাবে। আর এই net exam বছরে দুই বার হয়ে থাকে তাহলো, জুন এবং ডিসেম্বর মাসে।

যেখানে আপনাকে আবেদন ফর্ম পুরন করতে হবে। আবেদন ফর্মে উল্লেখ করতে হবে আপনি কোন বিষয় নিয়ে নেট এক্সাম দেবেন। সেই নেট এক্সাম দেওয়ার পর আপনি কি করতে চান? আপনি কি প্রফেসরের জন্য করবেন নাকি PhD করার জন্য JRF নেবেন নাকি দুটোই করেবেন। তা আপনি ফর্ম পুরন করার পর করতে পারবেন।

Net exam এর eligibility:

এই Net exam দেওয়ার জন্য আপনার masters ডিগ্রী এর প্রয়োজন। আর এই masters ডিগ্রী শেষ বছরে থাকার সময় এই নেট এক্সাম দিতে পারবেন। কিন্তু অবশ্যই আপনার masters ডিগ্রী COMPLET হতে হবে। এই masters ডিগ্রীতে অবশ্যই ৫৫% নাম্বার থাকতে হবে। অথবা আপনি যদি রিজার্ভ ক্যাটাগরির হয়ে থাকেন যেমন, Sc, St , OBC ,PWD তাদের জন্য ৫% ছাড় রয়েছে। মানে আপনি যদি রিজার্ভ ক্যাটাগরি থেকে হয়ে থাকেন তাহলে ৫০% নাম্বার পেলেই net exam দিতে পারবেন।

আবার কারো কারো মনে প্রশ্ন থাকে যে, সে কোন বিষয় নিয়ে নেট এক্সাম দেবে। সেটা হচ্ছে, সে কোন বিষয় নিয়ে post graduation করেছে আর সেই বিষয় নিয়েই তাকে নেট এক্সাম দিতে হবে। আর এই নেট এক্সাম দিয়ে যে JRF পেতে চায়। তার বয়স ৩০ বছরের কম হতে হবে। আবার রিজার্ভ ক্যাটাগরির জন্য এই বয়স ৫ বছর পর্যন্ত ছাড় দেওয়া হয়ে থাকে।

রিজার্ভ ক্যাটাগরি গুলো হল-

ক) SC/ST/OBC/PWD এর জন্য ৫ বছর।
খ) মহিলাদের জন্য ৫ বছর।
গ) যাদের LLM ডিগ্রী রয়েছে তাদের জন্য ৩ বছর।
ঘ) যারা armed forces তাদের জন্য ৫ বছর।
কিন্তু আপনি যদি নেট এক্সাম দেওয়ার পরে প্রফেসর হতে চান তাহলে আপনার বয়স কোন ব্যাপার না। আপনি যে কোন বয়সে এই exam
দিতে পারবেন।

এবার জানব NET EXAM এর প্যার্টান সম্পর্কে

Net exam এর প্যার্টানঃ

এই পরীক্ষাটি কম্পিউটার based test এ হয়ে থাকে। এই নেট এক্সাম টি দুইটি পেপারে হয়ে থাকে। যার প্রথম পেপারে ৫০ টি প্রশ্ন আর দ্বিতীয় পেপারে ১০০ টি প্রশ্ন থাকে। এই প্রশ্ন গুলোর সব দুই করে নাম্বার থাকে। যা প্রথম পেপারে ১০০ নাম্বার আর দ্বিতীয় পেপারে ২০০ নাম্বার মোট ৩০০ নাম্বারের হয়ে থাকে।

এরপর রয়েছে type of peppers
ক) পেপার ১- যেখানে সব শিক্ষার্থীর একই রকম প্রশ্ন হয়ে থাকে।
খ) পেপার ২- যেখানে সব শিক্ষার্থীর প্রশ্ন বিষয় ভিত্তিক হয়ে থাকে।

এরপর রয়েছে পরীক্ষার সময়ঃ

এই পরীক্ষার জন্য আপনাকে মোট ৩ ঘন্টা সময় দেওয়া হবে। যার প্রথম পেপারে ৬০ মিনিট আর দ্বিতীয় পেপারে ১২০ মিনিট।

এরপর রয়েছে type of questionঃ

এই রকম পরীক্ষায় objective আকারে প্রশ্ন হয়ে থাকে। যা ৪ টি প্রশ্নের মাঝে সঠিক উত্তর দিতে হবে। আপনার সঠিক উত্তরের জন্য ২ নাম্বার আর ভুল উত্তরের জন্য কোন মার্ক কাটা হবে না।

এরপর যেটি রয়েছে তা হল exam languageঃ এই Net exam দুইটি ভাষায় হয়ে থাকে ইংরেজী এবং হিন্দি তে।

এরপর রয়েছে সিলেবাসঃ

নেট এক্সাম পেপার ১ সাধারনত teaching aptitude, research aptitude, communication etc. থেকে প্রশ্ন হয়ে থাকে। আর এই নেট এক্সাম পেপার ২ প্রশ্ন আসে বিষয় ভিত্তিক ভাবে। যেখানে আপনি যে বিষয় নিয়ে net exam দিচ্ছেন সেই বিষয় থেকে প্রশ্ন আসবে। আপনি সাধারনত graduation ও post graduation এ যা পড়েছেন তার মধ্যে থেকে প্রশ্ন হয়ে থাকে। প্রতি বছর net qualify এবং JRF নিয়ে net qualify করার জন্য কার্ট অফ বের হয়।

আর আপনি যদি এই কার্ট অফ পার করেন। অথ্যাৎ এই কার্ট অফ এ বেশি নাম্বার পেয়ে থাকেন তাহলে আপনি net qualify অথবা JRF নিয়ে net qualify করতে পারবেন। এই নেট এক্সাম এ JRF পাওয়ার জন্য অনেক প্রতিযোগিতা হয়ে থাকে। আপনি ধরে নিতে পারেন, এই নেট এক্সাম এ যতগুলো শিক্ষার্থী পরীক্ষা দিয়ে থাকে। তার মধ্যে মাত্র ১% শিক্ষার্থী এই JRF পেয়ে থাকে।

এবার আমরা জেনে নেব কিভাবে net exam truck করে থাকে

Net exam truck:

এই net exam tuck করতে আপনার graduation এবং post graduation ভিত্তি খুব শক্তিশালি হতে হবে। অথ্যাৎ graduation এবং post graduation এ যা পড়েছেন সেই সব বিষয়ে আপনার খুব ভাল জ্ঞ্যান থাকতে হবে। এর কারন অনেক সময় এই নেট এক্সাম পরীক্ষায় প্রশ্ন অনেক ঘুরিয়ে আসতে পারে। আর আপনি যদি এই নেট এক্সাম দিতে চান তাহলে graduation এর পর থেকে masters ডিগ্রী করার সময় থেকেই এই পরীক্ষার জন্য প্রস্তুতি নেওয়া উচিত।

এখানে আপনি যে বিষয় নিয়ে post graduation করছেন এবং পরে নেট এক্সাম দিতে চান সেই বিষয় নিয়ে প্রশ্ন গুলো প্রাকটিস করা শুরু করুন আর তার সাথে সাথে সাধারন প্রশ্ন গুলো পড়া শুরু করুন। আর আপনি previous year এর প্রশ্ন দেখুন আর আপনি যখন masters এর final year এ থাকবেন তখনি আপনি net exam এর জন্য আবেদন করবেন। previous year এর প্রশ্ন দেখলে আপনি বুঝতে পারবেন যে কি রকম প্রশ্ন আসে। তাহলে আপনার প্রস্তুতি নিতে সহজ হবে। আপনি যদি এই নেট এক্সাম দিতে চান তাহলে ভাল করে পড়াশুনা করুন। তাহলে আপনি এই নেট এক্সাম এ qualify করতে পারবেন।

আর আমার পাঠক বন্ধুরা Net exam নিয়ে আপনাদের যে প্রশ্ন গুলো ছিল। আশা করি তা আর নেই। তাই আমি আশা করি যার যোগ্যতা আছে। তারা এখনি Net exam দেওয়ার জন্য আবেদন করবেন। আর কোন মতামত থাকলে কমেন্ট করে জানাতে ভুলবেন না। সবার জন্য শুভ কামনা রইলো।

IELTS কি? IELTS সম্পর্কে বিস্তারিত সব তথ্য পড়তে এখানে ক্লিক করুন।

ধন্যবাদ