স্পেনে উচ্চশিক্ষা সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য

0
156
স্পেনে উচ্চশিক্ষা সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য স্পেনে উচ্চ শিক্ষা
স্পেনে উচ্চশিক্ষা সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য

স্পেনে উচ্চশিক্ষা সম্পর্কে বিস্তারিত জানিয়ে দেওয়ার আগে আপনাদের জানাবো। স্পেনে উচ্চ শিক্ষা গ্রহন করার আগে সে দেশের ভৌগলিক অবস্থা আর বিশ্ববিদ্যালয় গুলো কেমন সে সম্পর্কে। আর বিদেশে বা স্পেন এ উচ্চশিক্ষা গ্রহন করতে যা যা করতে হবে সে সম্পর্কে খুঁটিনাটি বিষয় গুলো আপনাদের জানিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করবো। চলুন তাহলে শুরু করা যাক স্পেন এর উচ্চ শিক্ষা সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা।

স্পেন পশ্চিম ইউরোপের ইউরোপীয়ান ইউনিয়ন ভুক্ত একটি সেঞ্জেন দেশ। স্পেনের রাজধানী মাদ্রিদ বৃহত্তম শহর এবং প্রধান সাংস্কৃতিক ও বাণিজ্যিক কেন্দ্র। এই দেশের প্রধান প্রধান শহর গুলোর মধ্যে বার্সেলোনা,বালেনছিয়া,ছারাগোছা,মুরছিয়া,আলিকান্তে,সেবিইয়া, মালাগা,বিক,বিলবাউ,বাইয়াডোলিড ইত্যাদি অন্যতম। স্পেনের আয়তন ৫ লক্ষ ৫ হাজার ৯ শ বর্গ কিলোমিটার।

আয়তনের দিক থেকে স্পেন বিশ্বের ৫১তম দেশ। দেশটি দক্ষিণ-পশ্চিম ইউরোপের আইবেরীয় উপদ্বীপে অবস্থিত। স্পেনের পশ্চিম দিকে পর্তুগাল এবং উত্তর-পূর্ব দিকে ফ্রান্স ও অ্যান্ডোরার সঙ্গে সংলগ্ন। দেশটির উত্তরে বিস্কাই উপসাগর,দক্ষিণ দিকে জিব্রাল্টার প্রণালী এবং প্রণালীর দক্ষিণে মরক্কো,পশ্চিম ও দক্ষিণ-পশ্চিম দিকে আটলান্টিক মহাসাগর অবস্থিত। দেশটির পূর্ব ও দক্ষিণ-পূর্ব দিকে ভূমধ্যসাগর। স্পেনের সমুদ্র সীমা প্রায় ৭ হাজার ৮০০ কিলোমিটার লম্বা। স্পেনের সর্বোচ্চ পর্বত মাউন্ট তেইদে যা ৩,৭১৮ মিটার। বন্ধুরা, এখন আমি আপনাদের জানিয়ে দেবো আপনি স্পেনে কেন পড়তে যাবেন?

স্পেনে পড়তে যাবেন কেন

আপনি যদি বিদেশে উচ্চশিক্ষার জন্য যেতে চান ইউরোপ মহাদেশে, আর উচ্চশিক্ষা এর গন্তব্য যদি হয় স্পেন। তাহলে মনে রাখবেন, স্পেন আপনাকে বিশাল হৃদয় নিয়ে অভ্যর্থনা জানাবে। কেননা এই দেশের পড়াশুনার পরিবেশ, চর্চার জায়গা, বিকাশ ও সার্বিক সুযোগ সুবিধা ও মানের বিচারে এই দেশের বিশ্ববিদ্যালয় গুলো অনেক এগিয়ে আছে। শুধু তাই কি, আমেরিকা থেকেও স্পেন এ উচ্চশিক্ষা নিতে এই দেশে পড়তে আসে অনেক শিক্ষার্থী। তাহলে আপনি বুঝতেই পারছেন, স্পেন অনেকটাই এগিয়ে রয়েছে বিদ্যার্জনের পীঠস্থান হিসেবে। আর আপনি যদি বিদেশে উচ্চশিক্ষা নিতে যান, তাহলে প্রথমে আপনাকে জেনে নিতে হবে সে দেশের বিশ্ববিদ্যালয় গুলো সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য।

স্পেনে উচ্চশিক্ষা এর জন্য বিশ্ববিদ্যালয় নির্বাচন

বিদেশে বা স্পেন এ উচ্চশিক্ষা গ্রহন করার জন্য নিচে কিছু বিশ্ববিদ্যালয়ের নাম তুলে ধরা হলো-

Universitat de Barcelona ( বার্সেলোনা বিশ্ববিদ্যালয় )
Universidad Complutense de Madrid ( ইউনিভার্সিটিড কমপ্লুটেনস ডি মাদ্রিদ )
Universitat de València ( ইউনিভার্সিটি ডি ভ্যালেন্সিয়া )
Universidad de Granada ( ইউনিভার্সিটিড ডি গ্রানাডা )
Universidad Politécnica de Madrid ( ইউনিভার্সিড পলিটেকনিকা ডি মাদ্রিদ )
Universitat Autónoma de Barcelona ( ইউনিভার্সিটি অটোনোমা ডি বার্সেলোনা )
Universidad de Sevilla ( ইউনিভার্সিটিড ডি সেভিলা )
Universidad de La Rioja ( ইউনিভার্সিটিড দে লা রিওজা )

এছাড়াও স্পেনে উচ্চ শিক্ষা এর জন্য অনেক ভালো মানের বিশ্ববিদ্যালয় রয়েছে। সে গুলো সমন্ধে আপনি আরো খোঁজ নিতে পারেন। এখন আমি আপনাদের জানিয়ে দেবো স্পেন বিশ্ববিদ্যালয়ের কোর্স সমূহ কি কি সে সম্পর্কে বিস্তারিত।

স্পেন বিশ্ববিদ্যালয়ের কোর্স সমূহ

বিদেশে উচ্চশিক্ষা গ্রহন করতে হলে আপনাকে কোর্স নির্বাচন করতে হবে। তেমনি স্পেনে পড়াশুনার জন্য অনেক বিষয় রয়েছে। আর সেই বিষয় গুলো থেকে আপনাকে পছন্দ ও যোগ্যতা অনুযায়ী কোর্স বেছে নিতে হবে। নিচে কিছু অন্যতম কোর্স দেওয়া হলো-

স্পেনে উচ্চাশিক্ষা এর জন্য কোর্স সমূহ হলো ফিজিকোলজি, ফিলোসফি, অডিওলজি, আরলি চাইল্ডহুড এডুকেশন, লাইব্রেরি সায়েন্স, বায়োটেকনোলজি অকুপেশনাল থেরাপি প্রোগ্রাম, ফুড সায়েন্স, স্পেশালিষ্ট টিচার এডুকেশন, ফার্মাসি, ফিশারিস, এডমিনিস্ট্রেটিভ ল, সিভিল ল, পাবলিক ল, ম্যাথমেটিক্স, আর্টটেকচার, অটোলজি, সয়েল সায়েন্স, জার্নালিজম, মেডিক্যাল সায়েন্স, বায়োলজি, ফিজিক্স,ফিজিওথেরাপি, ইঞ্জিনিয়ারিং, আর্ট এন্ড ডিজাইন, এগ্রিকালচারাল সায়েন্স, মেরিটাইম সায়েন্স, ডেনটিসট্রি, অর্থোপেডিকস, রেডিওলোজী, ন্যাচারাল সায়েন্স, সোশাল সায়েন্স, আর্কিটেকচার, আর্টস, বিজনেস স্টাডিজ, ম্যানেজমেন্ট সায়েন্স, সোশাল ওয়ার্ক, নার্সিং, ভেটেরিনারি মেডিসিন ইত্যাদি বিষয়ে আপনি ব্যাচেলর্স ও মাস্টার্স কোর্সে পড়াশোনা করতে পারেন।

স্প্যানিশ ভাষা শিক্ষা

বাংলাদেশে স্প্যানিশ ভাষা শিক্ষার জন্য কিছু ইন্সিটিউট রয়েছে। তার মধ্যে বিশেষ করে আধুনিক ভাষা ইন্সিটিউট, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এ স্প্যানিশ ডিপার্টমেন্টে জুনিয়র এবং সিনিয়র কোর্স ১বছর করে স্প্যানিশ ভাষা শিক্ষা কোর্স চালু রয়েছে। যা সাধারনত প্রতি বছরের এপ্রিল-মে মাসে ভর্তির আবেদন গ্রহন করা হয়। তাছাড়া ঢাকার আরো কিছু বিশ্ববিদ্যালয়ে স্প্যানিশ ভাষা শিক্ষাদান করা হয়ে থাকে, যেমন ব্রাক ইউনিভার্সিটি এবং জাহাঙ্গীরনগর ইউনিভার্সিটি। আপনি চাইলেই এ সকল জায়গা থেকে স্প্যানিশ ভাষা শিখতে পারেন। এখন আপনাদের জানিয়ে দেবো স্পেনে উচ্চ শিক্ষা গ্রহন করতে হলে আপনার কি কি যোগ্যতা থাকতে হবে সে সম্পর্কে।

স্পেনে উচ্চশিক্ষা এর জন্য নূন্যতম যোগ্যতা

আপনি স্পেনে উচ্চ শিক্ষা বা ব্যাচেলর যাই করেন না কেন আপনাকে ১২ বছরের শিক্ষা জীবনের অর্থাৎ HSC পাশ করে আসতে হবে। আর মাস্টার্স প্রোগ্রামের জন্য ১৬ বছরের শিক্ষা জীবনের অর্থাৎ, ব্যাচেলর ডিগ্রী থাকতে হবে। এছাড়া আপনি যদি পিএইচডি করার জন্য স্পেন যান তাহলে আপনার থাকতে হবে মাস্টার্স ডিগ্রী। এরপর আপনার দরকার হবে ভাষাগত দক্ষতার সার্টিফিকেট। আর আপনি যদি ইংরেজী ভাষায় কোর্স করতে চান তাহলে আপনাকে IELTS এ ৫.৫/৬.০ – ৭.০ স্কোর পেতে হবে। তবে বিশ্ববিদ্যালয় ভেদে এই স্কোর পরিবর্তিত হয়। আর আপনি যদি স্প্যানিশ ভাষায় কোর্স নিতে চান তাহলে আপনাকে B1/B2 বা DELE (Diploma of Spanish as a Foreign Language) Intermediate বা DELE B1/B2 থাকতে হবে।

স্পেনে উচ্চশিক্ষা সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য

বিশ্ববিদ্যালয়ে আবেদনের সময়সীমা

বিদেশে উচ্চশিক্ষা গ্রহন করতে হলে বিশ্ববিদ্যালয় গুলোর দিকে নজর দিয়ে রাখতে হবে। কেননা, বিশ্ববিদ্যালয় গুলোতে আবেদনের সময়য়সীমা দেওয়া থাকে। তেমনি স্পেনে উচ্চশিক্ষা এর জন্য রয়েছে ডিপ্লোমা, স্নাতক, স্নাতোকত্তর অথবা পিএইচডি পড়ার জন্য সব ধরনের সুযোগ। এছাড়া স্পেনে তিন ধাপে বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষার্থীদের আবেদন পত্র গ্রহন করা হয়ে থাকে। ধাপ গুলো হলো-

প্রথম ধাপ : স্নাতক কোর্সে ভর্তি নেওয়া হয় সাধারনত বছর শুরুর ফেব্রুয়ারী-জুন এর দিকে। এই সময় ভর্তির আবেদন গ্রহন করা হয়।

দ্বিতীয় ধাপে : স্নাতকোত্তর কোর্সে ভর্তি নেওয়া হয় সাধারনত বছরের এপ্রিল-সেপ্টেম্বর দিকে। এই এপ্রিল-সেপ্টেম্বর মাসে ভর্তির আবেদন গ্রহন করা হয়।

তৃতীয় ধাপে : ৩য় ধাপ গবেষণামূলক/PhD কোর্সে ভর্তি নেওয়া হয় সাধারনত এপ্রিল-অক্টোবর মাস পর্যন্ত। বছরের এপ্রিল থেকে অক্টোবর মাসে ভর্তির আবেদন গ্রহন করা হয়।

এছাড়াও স্পেনে দুই ধরণের মাস্টার্স কোর্স আছে। একটি অফিসিয়াল মাস্টার্স কোর্স, যা স্পেনের শিক্ষা মন্ত্রণালয় দ্বারা অনুমোদিত আর দ্বিতীয়টি হল বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃক অনুমোদিত ও অফারকৃত মাস্টার্স প্রোগ্রাম, যা তুলনামূলক ব্যয়বহুল। আর মাস্টার্স প্রোগ্রামে অংশ গ্রহণ করতে আপনার ব্যাচেলরের মার্ক্স স্পেনের সমতুল্য স্কেলে রূপান্তর করিয়ে নিতে হবে।

এখন আপনাদের জানিয়ে দেবো স্পেনে উচ্চশিক্ষা এর জন্য আবেদন করতে বিশ্ববিদ্যালয়ে কি কি ডকুমেন্টস প্রয়োজন তার তালিকা সম্পর্কে।

স্পেনে উচ্চশিক্ষা গ্রহন করার জন্য কি কি ডকুমেন্টস প্রয়োজন

১। সকল একাডেমিক সার্টফিকেট এবং মার্কশীট (স্পেনের স্কেলে রূপান্তরকৃত)।
২। মোটিভিশন লেটার ও রিকমেন্ডেশন লেটার।
৩। CV/ সিভি।
৪। পাসপোর্টের কপি।
৫। ১ কপি পাসপোর্ট সাইজের ছবি।
৬। অ্যাপ্লিকেশন ফি পরিশোধের প্রমাণ পত্র।

উপরোক্ত সকল ডকুমেন্টস ঠিক ঠাক মত জমা দিতে হবে। এছাড়া প্রয়োজনে বিশ্ববিদ্যালয়ে মেইল করে জেনে নিতে হবে।

আর আপনার ডকুমেন্টস যদি ঠিকঠাক থাকে তাহলে, ১-২ মাসের মধ্যে আপনাকে মেইল করে জানিয়ে দেওয়া হবে। Acceptance Letter আপনার ঠিকানায় পাঠিয়ে দেওয়া হবে। এরপর আবেদন কনফার্ম করার জন্য টিউশন ফি-এর পুরোটা বা আংশিক অংশ বিশ্ববিদ্যালয়রের প্রদত্ত ব্যাংক একাউন্টসে পাঠিয়ে দিতে হবে। টিউশনের ফি-এর কতটুকু অংশ জমা দিতে হবে, সেটা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বিশ্ববিদ্যালয় ভিন্ন হতে পারে। এই টিউশন ফি (আংশিক/ পূর্ণ) জমা দেওয়ার পরে, বিশ্ববিদ্যালয় আপনাকে Acceptance Letter -এর হার্ডকপি ও ভিসার জন্য প্রয়োজনীয় অন্যান্য কাগজপত্র পাঠিয়ে দেবে।

স্পেনে উচ্চশিক্ষা বা পড়াশোনার খরচ ( টিউশন ফি)

স্পেনে অনেক পাবলিক ও বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় রয়েছে। আপনি পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়তে চাইলে আপনার বার্ষিক ফি দিতে হবে ৬,০০-১,২৮০ ইউরো। আর প্রাইভেট বিশ্ববিদ্যালয় হলে বার্ষিক ফি-এর পরিমাণ হবে ৫,৫০০-১৮,০০০ ইউরো পর্যন্ত।

তবে বিশ্ববিদ্যালয় ও কোর্স ভেদে এই টিউশন ফি-এর তারতম্য হয়ে থাকে। নন-ইউরোপীয় শিক্ষার্থীদের কাছে থেকে প্রতি ক্রেডিট ৫৫-৮০ ইউরো হয়ে থাকে আর মাস্টার্স বা পিএইচডি প্রোগ্রামে এই প্রতি ক্রেডিট ফি হয়ে থাকে ২২-৩৬ ইউরো।

ভিসা আবেদন প্রক্রিয়া

স্পেনের ভিসা পেতে আপনার সময় লাগবে ৩ মাসের বেশি, তাই আগে ভাগেই আপনাকে আবেদনের জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে। ভিসা পাওয়ার প্রথম ধাপ হবে আপনাকে ঢাকাস্থ স্পেনের দূতাবাস থেকে ভিসা প্রাপ্তির জন্য আবেদন করা।

ভিসা আবেদনের প্রয়োজনীয় কাগজপত্রের চেক লিস্ট

১। বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পাঠানো Offer Letter।
২। সকল সত্যায়িত ডকুমেন্টস, মার্কশিট ও সকল সনদ পত্র।
৩। বৈধ পাসপোর্ট ও ফটোগ্রাফ।
৪। CV, মোটিভিশন লেটার ও রিকমেন্ডেশন বা রেফারেন্স লেটার।
৫। ব্যাংক স্টেটমেন্ট ও আর্থিক স্বচ্ছলতার ডকুমেন্টস।
৬। IELTS / DELE B1-B2 এর সনদ পত্র।
৭। হাউজিং সার্টিফিকেট/ ডকুমেন্টস।
১১। ফ্লাইট বুকিং টিকিট।
১২। স্কলারশিপের পেপার (যদি থাকে)।

স্পেনে উচ্চশিক্ষা এর পাশাপাশি পার্ট টাইম জব ও জীবনযাত্রার খরচ

স্পেনে একজন বিদেশী শিক্ষার্থীর সপ্তাহে ২০ ঘন্টা কাজ করার সুযোগ থাকে। তবে, পার্ট টাইম জবের টাকায় নিজের খরচ চালানো সম্ভব হলেও টিউশন ফি দেওয়া সম্ভব হবে না। তবে স্পেনে থাকা-খাওয়া বাবদ একজন শিক্ষার্থীর মাসিক খরচ প্রায় ৪০০-৫০০ ইউরো। আর এটা নির্ভর করে শহর এবং ব্যক্তির লাইফ স্টাইল এর উপর।

স্পেনের আবাসন ব্যবস্থা

স্পেনে আপনি কোথায় আছেন সেটার উপর নির্ভর করবে আপনাকে আবাসন বাবদ কত খরচ করতে হবে। মাদ্রিদ বা বার্সেলোনার মত শহরে থাকতে আপনাকে ৩৫০ – ৯০০ ইউরো দিতে হবে শেয়ারড ফ্ল্যাটের জন্য। কিন্তু আপনি যদি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে দূরে স্যালামাঙ্কা, স্যান্টিয়াগো ডি কম্পোসটেলা ও গ্র্যানাডা শহরে থাকেন আপনি ৩০০ ইউরোতে আপনার ফ্ল্যাট পেয়ে যাবেন। শুধু তাই নয়, অন্যান্য খরচও এখানে কম। সমস্যা হবে আপনাকে রোজ বেশ খানিকটা রাস্তা কমিউট করে বিশ্ববিদ্যালয়ে পৌছাতে হবে।

আপনি বিশ্ববিদ্যালয়ের হোস্টেলেও আবেদন করতে পারেন। দ্রুত আবেদন করলে আপনার হোস্টেলে থাকার সম্ভবনা বেড়ে যাবে। আপনি যেখানেই থাকেন না কেন, ভিসার জন্য আপনাকে সংগ্রহ করতে হবে হাউজিং কন্ট্রাক্ট ডকুমেন্টস।

স্পেনে স্থায়ী বসবাস এর সুযোগ

গত সেপ্টেম্বর ২০১৮ সাল থেকে স্পেনে একটি নতুন ইমিগ্রেসন আইন অনুমোদন করা হয়েছে, এই আইনের অধীনে স্পেনে উচ্চশিক্ষা এর জন্য বিদেশী শিক্ষার্থীরা তাদের উচ্চশিক্ষা সমাপ্তির পর স্পেনে একটি চাকরি খোঁজার জন্য অথবা নিজস্ব ব্যবসায়িক প্রকল্প তৈরি/ব্যবসা প্রতিষ্ঠান স্থাপন করতে সর্বোচ্চ ১২-মাস স্পেনে থাকার অনুমতি পাবেন।

এখানে ৫ বছর থাকার পর Temporary Resident Permit এর জন্য আবেদন করার সুযোগ থাকে। তবে এজন্য কিছু শর্ত পূরণ করতে হবে যেমন, সফলভাবে স্পেনে কোর্স শেষ করতে হবে, স্বাস্থ্যবীমা থাকতে হবে এবং চাকুরী পাওয়ার আগ-পর্যন্ত চলার মত আর্থিক সামর্থ্যের প্রমাণপত্র। আর টানা ১০ বছর থাকার পর, আপনি Permanent Residence এর জন্য আবেদন করতে পারবেন।

যাই হোক, স্বপ্নের উচ্চ শিক্ষা স্পেন হোক আপনার সম্ভবনার নতুন দুয়ার। শুরু করে দিন আজই স্পেনে ভর্তির আবেদন।

আপনি আরো পড়তে পারেন, জাপানে উচ্চ শিক্ষা সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য।