পর্তুগালে কম টিউশন ফি তে উচ্চশিক্ষা

0
172
পর্তুগালে কম টিউশন ফি তে উচ্চ শিক্ষা
পর্তুগালে কম টিউশন ফি তে উচ্চ শিক্ষা

পর্তুগালে কম টিউশন ফি তে উচ্চশিক্ষা

আসসালামু আলাইকুম। বন্ধুরা আপনারা সবাই কেমন আছেন। আশা করি আপনারা সবাই ভাল আছেন। আপনি কি আপনার ক্যারিয়ার নিয়ে ভাবছেন। আপনি কি পর্তুগালে স্টুডেন্ট ভিসায় কম খরচে উচ্চশিক্ষা নিতে চান। আপনি কি ভাবে পর্তুগালের পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় গুলোতে ভর্তি হয়ে খুব কম টিউশন ফি দিয়ে যে বিশ্ববিদ্যালয় গুলোতে পড়াশুনা করতে পারবেন সেগুলো সম্পর্কে জানতে চান? আজ কে আমি আপনাদের কে সেই সম্পর্কে বিস্তারিত জানাবো।

তাহলে বন্ধুরা এই তথ্য গুলো সম্পর্কে ভালভাবে জেনে নিন আর সেগুলো সঠিক ভাবে প্রয়োগ করে পর্তুগালে চলে যান উচ্চশিক্ষার জন্য। বন্ধুরা আজ আমি আলোচনা করবো পর্তুগালে কম খরচে পড়াশুনা করা যায় সেই বিশ্ববিদ্যালয় গুলো সম্পর্কে।

আমাদের প্রত্যেকেরই অনেক স্বপ্ন থাকে বিদেশ থেকে graduation বা post graduation শেষ করার। কিন্তু আমাদের যোগ্যতা থাকা স্বত্বেও টাকা এবং সঠিক দিক নির্দেশনার অভাবে আমাদের স্বপ্ন, স্বপ্নই থেকে যায়। বিদেশে উচ্চ শিক্ষার কথা শুনলে প্রথমে আমাদের মাথায় যে, বিষয়টি ঘোরপাক খায় সেটি হল নিজের স্বাদ্ধের মধ্যে দেশ নির্বাচন করে,কম টিউশন ফি দিয়ে উচ্চ শিক্ষা লাভ করা।

তাই যেসব বিশ্ববিদ্যালয় গুলোতে কম খরচে টিউশন ফি দিয়ে পর্তুগালে উচ্চশিক্ষা লাভ করা যায় সে সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা নিচে তুলে ধরা হল-

পর্তুগাল

ক্রিস্টিয়ানো রোলান্দোর যাদুকরি খেলা দেখতে ভাল লাগে না এমন ফুটবল ভর্ক্ত কম আছে এই পৃথিবীতে। এমনকি যারা পর্তুগাল কে ভালবাসে না তারাও এই যাদুকরি ক্রিস্টিয়ানো রোনালদ কে ভালবাসে। আজ কে আমি আপনাদের সামনে নিয়ে আসবো সেই যাদুকরি রোনালদর দেশ কে নিয়ে।

আজ আলোচনা হবে আটলান্টিক মহাসাগরের দেশ পর্তুগালের উচ্চ শিক্ষা নিয়ে। পর্তুগাল ইউরোপিয় ইউনিয়ন ভুক্ত দেশ। এই দেশ সেনজেন চুক্তির আওতায় রয়েছে। আটলান্টিক মহাসাগরের দক্ষিন পশ্চিম তীরে অবস্থিত ইউরোপীয় দেশ পর্তুগাল। এই পর্তুগালের রাজধানী হচ্ছে লিসবন।

এটি হচ্ছে পর্তুগালের সব থেকে বড় শহর। এই পর্তুগালের ভাষা হচ্ছে পর্তুগীজ এবং মুদ্রা হচ্ছে ইউরো। প্রাচীন কালে এই দেশ শক্তিতে ও বুদ্ধিতে খুব সম্মৃদ্ধ ছিল। ১৬০০ শতাদ্বীতে এই শহরে ভাটা পরে যায়। এই পর্তুগালের আয়তন ৯২,২১২ বর্গ কিলোমিটার। এই দেশের জনসংখ্যা প্রায় ১ কোটি ৩ লাখ। পর্তুগালে অনেক উন্নতমানের বিশ্ববিদ্যালয় রয়েছে।

এই সব বিশ্ববিদ্যালয়ে আপনি masters, diploma, bachelor, PhD এছাড়া অনেক কোর্স করতে পারবেন। এছাড়া এসব বিশ্ববিদ্যালয়ে রয়েছে বিভিন্ন subject যেমন, science, economics, accounting, medical, engineering সহ বিভিন্ন ধরনের কোর্স। তবে আপনি মনে রাখবেন বেশি ভাগ বিশ্ববিদ্যালয়ে পর্তুগীজ ভাষায় অফার করা হয়ে থাকে।

তাই কোর্স বা বিশ্ববিদ্যালয় বাছাই করার আগে দেখে নেবেন সেখানে পর্তুগীজ নাকি ইংরেজি ভাষায় কোর্স অফার করা হয়ে থাকে কি না। পর্তুগালে স্টুডেন্ট ভিসাঃপর্তুগালে ইমিগ্রশন সহজ হওয়ায় এখানে সবাই আসতে চায়।

এদেশে বিদেশি শিক্ষার্থীরা স্টুডেন্ট ভিসায় এসে প্রথমে যেটা জানতে চায় সেটি হল পড়াশুনা শেষ করে সেটেলমেন্ট হওয়া যাবে কিনা সেটা জানতে চায়। তো আমি বলবো হ্যা, অবশ্যই করা যায়। এদেশে স্টুডেন্ট ভিসায় আসার পর আপনি convert করে work par mite নিয়ে সেখানে permit রেসিডেন্সী নিয়ে সেখানে বসবাস করতে পারবেন।

তারপর আপনার আর কোন সমস্যা হবে না। এরপর যে বিষয়টি নিয়ে আলোচনা করবো সেটি হল টিউশন ফি সম্পর্কে।

পর্তুগালে উচ্চশিক্ষা এর জন্য টিউশন ফিঃ

পর্তুগালে আপনি কম টিউশন ফি দিয়ে মাত্র ১০০০-৫০০০ হাজার ইউরো তে পড়াশুনা করতে পারবেন।

যেটা আর কোন দেশে সম্ভম নয়। আর আপনি যদি অন্যান্য দেশের সাথে তুলনা করেন তাহলে পর্তুগালের নাম টাই আসবে প্রথমে। পর্তুগাল হচ্ছে একটি মধ্যম আয়ের দেশ। এই দেশে ইমিগ্রেশন অন্যান্য দেশের তুলনায় অনেক সহজ। তবে আপনি ঝামেলা ছাড়াই এদেশে ইমিগ্রেশন করাতে পারবেন।

তারপর আমি আপনাদের একটা ধারনা দিয়ে রাখি bachelor বা MASTERS এর জন্য প্রতি বছর ৯৫০-১২০০ ইউরো প্রতি একাডেমিক year এ টিউশন ফি খরচ হতে পারে আর PhD ক্ষেতে হতে পারে ২৫০০- ৩৫০০ ইউরো। এখন আপনাদের কে জানাবো আবেদন ফি কেমন হতে পারে।

পর্তুগালে উচ্চশিক্ষার জন্য আবেদন ফিঃ

পর্তুগালে আবেদন ফি একদম সহজ এবং একেবারে কম খরচে করতে পারবেন। সেটা হচ্ছে ৫০-১০০ ইউরোতে করতে পারবেন। এতো কম খরচে অন্যান্য দেশে করা সম্ভম না যা পর্তুগালে করা সম্ভব। এই দেশে বছরে দুই বার সেসন হয়ে থাকে। প্রথম আবেদন শুরু হয় নভেম্বর থেকে ফেব্রুয়ারী আর দ্বিতীয়টির আবেদন শুরু হয় এপ্রিল থেকে জুলাই মাস পর্যন্ত। আর অনেকে জানতে চেয়েছেন IELTS ছাড়া পর্তুগালে যাওয়া যাবে কিনা।

IELTS:

এই দেশে IELTS কিছু কিছু বিশ্ববিদ্যালয়ের জন্য অফসোনাল হয়ে থাকে আর কিছু কিছু বিশ্ববিদ্যালয়ের জন্য MAINOR হয়ে থাকে। এই IELTS ছাড়া আপনি পর্তুগালে কিছু কিছু বিশ্ববিদ্যালয়ে আবেদন করতে পারবেন না। আপনি online এ খুজে নিবেন, কোন বিশ্ববিদ্যালয়ে আবেদন করতে চান। এমনি অনেক বিশ্ববিদ্যালয় আছে সেখানে কোন IELTS লাগবে না।

সেখানে আপনি IELTS ছাড়া আবেদন করতে পারবেন। তবে টিউশন ফি ও আবেদন ফি জমা দিলে আপনি আবেদন করতে পারবেন। আর এখানে কোন সমস্যা হবে না। এখন আপনাদের জানাবো কিভাবে আপনি আবেদন করবেন।

পর্তুগালে উচ্চশিক্ষা এর জন্য আবেদন প্রক্রিয়াঃ

পর্তুগা্লের বিশ্ববিদ্যালয়ে আবেদন করতে কি কি কাগজপত্র লাগবে তা নিচে দেওয়া হল-

১। সব একাডেমিক সার্টিফিকেট ও মার্কশীট।
২। মোটিভেশন লেটার ও রিকমেন্ডেশন লেটার।
৩।পাসপোর্টের কপি।
৪। পাসপোর্ট সাইজের এক কপি ছবি।
৫। ইউরোপাস ফরম্যাট CV।
৬। আবেদনের ফি পরিশোদের রশিদ।

এসব কাগজপত্র ঠিকঠাক ভাবে জমা দিতে হবে। তাহলে আপনার আবেদন গ্রহনযোগ্য হবে। যারা কম খরচে পড়াশুনা করতে চান বা যারা মধ্যবিত্ত পরিবারের শিক্ষার্থী তাদের জন্য চেষ্টা করবো ভাল কিছু সাজেশন দেওয়ার জন্য।

আর যাদের নিম্ন মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিকে গ্যাপ আছে তারাও কিন্তু আবেদন করতে পারবেন। কেননা পর্তুগালে এমনো অনেক বিশ্ববিদ্যালয় আছে সেখানে গ্যাপ পূরন করে থাকে। এটা শিক্ষার্থীদের জন্য একটা বড় সুযোগ। পর্তুগালে স্টুডেন্ট ভিসায় যাওয়ার পর আপনি সপ্তাহে ২০ঘন্টা কাজ করতে পারবেন।

এখানে পার্ট টাইম জব করার জন্য অনেক কাজ রয়েছে। আর এই পার্ট টাইম জব করেই কিন্তু আপনি টিউশন ফি দিতে পারবেন। এখন আমরা আলোচনা করবো স্ট্যাডি নিয়ে।

স্ট্যাডিঃ

এদেশে আপনি স্ট্যাডি শেষ করে PSC কার্ডের জন্য আবেদন করতে পারবেন যদি সেখানে এক বছর কাজ করেন। এখানে প্রতি সপ্তাহে ২০ঘন্টা কাজ করলে আপনাকে কোন ট্যাক্স দেওয়া লাগবে না। আর যখন আপনি work par met এর জন্য ফুল টাইম কাজ করবেন তখন আপনাকে ট্যাক্স প্রদান করতে হবে।

এই ট্যাক্স ধারাবাহিক ভাবে এক বছর দিলে আপনি PSC কার্ডের জন্য আবেদন করতে পারবেন। এই PSC কার্ড পাওয়ার পর যখন আপনি চাকুরী করবেন এবং চাকুরীর বয়স যদি ৫ বছর হয় আর এই ৫ বছরের ট্যাক্স দিতে পারেন। আর এই ট্যাক্সের প্রমান সহ যদি সরকারের কাছে আবেদন করেন তারপর আপনি রেমিটেন্স পেয়ে যাবেন।

তো বন্ধুরা এই ছিল আমার কাছে পর্তুগালে কম টিউশন ফি তে উচ্চশিক্ষা লাভ করার সংক্ষিপ্ত তর্থ্য। যদি আমার লেখাটি পড়ে আপনাদের কোন উপকার হয় তাহলে বন্ধুরা এখনি আবেদন করুন। আর এই সুযোগ টি কাজে লাগান। আর হতেও তো পারে কম টিউশন ফি তে আপনার পড়াশুনা করার সুযোগ। আপনাদের জন্য রইলো শুভ কামনা।

আরো পড়তে পারেন পর্তুগালে উচ্চশিক্ষার বিস্তারিত তথ্য

আল্লাহ হাফেজ।