চীনে স্কলারশিপ নিয়ে উচ্চশিক্ষার সুযোগ

0
167
চীনে স্কলারশিপ নিয়ে উচ্চশিক্ষার সুযোগ চীনে স্কলারশিপ এর জন্য আবেদন
চীনে স্কলারশিপ নিয়ে উচ্চশিক্ষার সুযোগ

চীনে স্কলারশিপ নিয়ে উচ্চশিক্ষা

চীনে পড়াশোনা করার জন্য নানা রকম স্কলারশিপ প্রদান করা হয়ে থাকে সরকার কর্তৃক। আপনি সেই স্কলারশিপের সুবিধা জেনে আবেদন করতে পারেন। চীনে স্কলারশিপ এর সুবিধা , চীনে স্কলারশিপের জন্য আবেদন কিভাবে করবো, আমি আজ এই বিষয় নিয়ে আলোচনা করব। আর কথা না বাড়িয়ে চলুন শুরু করি চীনে স্কলারশিপ এর সুযোগ সুবিধা সম্পর্কে আজকের আলোচনা।

আমাদের মনে অনেক আশা থাকা সর্ত্বেও আমরা আশানুরুপ ফল পাই না। হয়তো সেটা ভাগ্যের দোষও হতে পারে। তবে যাই হোক, এখন কথা হল বিশ্বের কয়েকটি দেশে স্কলারশিপ পাওয়ার সম্ভাবনা অনেক কম যেমনঃ আমেরিকা, দক্ষিণ কোরিয়া, জাপান যুক্তরাষ্ট্র ও চীনে স্কলারশিপ ইত্যাদি। আমি আজ আপনাদের সাথে চীনে স্কলারশিপ নিয়ে আলোচনা করব।

চীনের নাম শুনলেই আমাদের দেশের মানুষের মধ্যে একটা বিরুপ মনোভাব লক্ষ করা যায়। একমাত্র চীনেই রয়েছে আমাদের জন্য ভালো স্কলারশীপ নিয়ে পড়াশুনার সুয়োগ। প্রথমে আমি আপনাদের কাছে চীনের পড়াশুনার কিছু সুযোগ সুবিধার কথা তুলে ধরলাম।

চীনে স্কলারশিপ এর সুবিধা সমূহ

০১। চীনের স্কলারশি এর ফান্ড শুধু সরকার থেকে আসে। আপনি যদি একবার স্কলারশিপ পেয়ে যান তাহলে আপনাকে ৩-৪ বছর কোন চিন্তা করতে হবে না।

০২। চীনের অধিকাংশ অধ্যাপক খুবেই ভালো। আর তারা সর্বচ্চ চেষ্টা করে তাদের শিক্ষার্থীদের কে সঠিক সময়ে ডিগ্রি দেওয়ার জন্য।

০৩। প্রত্যেক অধ্যাপকের নিজস্ব প্রজেক্টের ফান্ড আছে। আর সেই ফান্ড থেকে তারা তাদের ছাত্রদের মাসিক বা বার্ষিকভাবে টাকা দিয়ে থাকেন। যার ফলে স্কলারশিপের পাশাপাশি আর্থিকভাবে ছাত্ররা কিছুটা লাভবান হয়।

০৪।  চীনের বেশির ভাগ ইউনিভার্সিটিতে TOFEL চায় না।

০৫। চীনে মাস্টার্সের স্কলারশিপ পাওয়া অন্য দেশগুলোর তুলনায় অনেক সহজ। চীনে ফান্ডের অভাব নেই, মাস্টার্স এরপর পিএইচডি অথবা পিএইচডির পর এর ভালো সুযোগ আছে।

০৬। আমাদের দেশের এর শিক্ষার্থীদের জন্য বাইরের দেশে ফান্ডিং ম্যানেজ করা অনেক কঠিন হয়ে যায়। সে ক্ষেত্রে চীনে এসব বিষয়ের শিক্ষার্থীদের জন্য চীনে স্কলারশিপ নিয়ে পড়াশোনার ভালো সুযোগ রয়েছে।

৭। প্রতিটি ইউনিভার্সিটিতে ইন্টারন্যাশনাল শিক্ষার্থীদের জন্য নিজস্ব আবাসিক এবং খাওয়াদাওয়ার জন্য মুসলিম ক্যানটিনের ব্যবস্থা আছে। চীনে স্কলারশিপ নিয়ে উচ্চশিক্ষার অসুবিধা ভাষাগত সমস্যাটা শুধু চীনে নয় আপনি যে দেশেই যান না কেন আপনাকে এই সমস্যার সামান্য কিছু হলেও আপনাকে হতে হবে।

তবে চীনে আপনি যখন ইউনিভার্সিটিতে প্রথম সেমিস্টারে ক্লাস শুরু করবেন তখন থেকে আপনাকে ৬ মাস বা ১ বছর (স্কলারশিপের ক্যাটাগরির ওপর নির্ভর করে) একাডেমি শিক্ষার পাশাপাশি আপনাকে চীনা ভাষা শিখতে হবে।

আপনাকে সেই ভাষা গুলো শেখাবে যে ভাষা গুলো দৈনন্দদিন জীবনে লাগে। এই শিক্ষাটা আপনাকে অনেক সাহায্য করবে। তবে আপনি ল্যাব মিটিংগুলো কিছুই বুঝবেন না। এমন কি আপনার ল্যাবের শিক্ষার্থীর সাথে কথা বলতে আপনার সমস্যা হবে। এক্ষেত্রে আপনাকে ব্যক্তিগতভাবে চাইনিজ ভাষা শিখে নিতে হবে। তবেই আপনার এই সমস্যা থেকে পরিত্রান পাওয়া সম্ভব।

চীনে স্কলারশিপের জন্য আবেদন

০১। আপনি যে ইউনিভার্সিটিতে ভর্তি হতে চান সেই ইউনিভার্সিটির র‍্যাস্কিং বের করতে হবে। এর মূলত কারণ হল প্রথম সারির ইউনিভার্সিটিগুলোতে বেশি শিক্ষার্থীর সুযোগ-সুবিধা দেওয়া হয়। আর তাই আপনি গুগলে গিয়ে লিখে সার্চ করতে পারেন। এবং আপনি ওয়েবসাউড থেকে ইউনিভার্সিটির র‍্যাংকিং দেখে নিতে পারেন।

০২। তারপর আপনাকে রিসার্চ ইন্টারেস্ট মোতাবেক আপনাকেই প্রফেসর খুজে নিতে হবে। ইউনিভার্সিটির অফিশিয়াল ওয়েবসাইট গিয়ে সার্চ করলেই আপনি সুভারভাইজার খুজে পাবেন। আর এভাবে আপনাকে বেশ কয়েকজনের সম্ভব্য সুপারভাইজারের তালিকা তৈরী করতে হবে।

০৩। তারপর তাদেকাই কাগজপত্র মেইল করে পাঠাতে হবে। বছরের সেপ্টেম্বর মাসে শিক্ষার্থীদের এনরোল হয় এবং আবেদনের শেষ সময় ১৫ই এপ্রিল থেকে ৩০ এপ্রিল পর্যন্ত (আর কিছু কিছু ক্ষেত্রে ভার্সিটির উপর নির্ভর করে)।

এই জন্য প্রফেসরকে অক্টোবর থেকে ই–মেইল করতে হয়। সবচেয়ে ভালো হয় ই–মেইলের একটা template তৈরি করে নিলে। কোনো জায়গা থেকে করার দরকার নেই। সাজেশন পেতে পারেন বড় ভাই-আপুদের কাছ থেকে, বা গুগল থেকে।

৪। কোনো প্রফেসর আপনাকে তার রিসার্চ গ্রুপে নিতে আগ্রহী হলে তার কাছ থেকে একটি acceptance letter নিয়ে নিন (লেটারের ফরম্যাট ইউনিভার্সিটির ওয়েবসাইটে দেওয়া থাকে। সেখান থাকে ডাউনলোড করতে পারবেন)। এই আপনার আবেদনের সময় জমা দিতে হবে।

৫। এবার ইউনিভার্সিটির ওয়েবসাইটে গিয়ে স্কলারশিপ আবেদনের জন্য কী কী কাগজপত্র জমা দিতে হবে, সেটি দেখে সেগুলো প্রস্তুত করুন এবং জমা দিয়ে দিন।

৬। সাধারণত জুন থেকে শুরু করে জুলাই বা আগস্ট এই সময়ের মধ্যে স্কলারশিপের রেজাল্ট চলে আসে। ভিসা প্রসেসিং করতে ১ সপ্তাহ লাগবে এবং স্পেটেম্বরর মাঝামাঝি আপনার সেমিস্টার শুরু হয়ে যাবে।

চীনে স্কলারশিপ নিয়ে শেষ কথা

পরিশেষে বলতে চাই, ওয়ার্ল্ড র‍্যাঙ্কিংয়ে প্রথম ১০০ ইউনিভার্সিটির মধ্যে বর্তমানে ৬টি ইউনিভার্সিটি আছে চীনের এবং বর্তমান সময় অনেক ভালো ভালো রিসার্চ কিন্তু চীনে হচ্ছে। এখানে পড়াশোনা শেষ করে অনেকেই এখন ইউরোপ আমেরিকাসহ পুরো বিশ্বের বিভিন্ন জায়গাতে ভালো ভালো কাজ করছেন। তাই সময় নষ্ট না করে চীনকেও আপনি আপনার উচ্চশিক্ষার একটা গন্তব্যস্থান বানাতে পারেন।

প্রিয় পাঠক বন্ধুরা এই ছিল চীনে স্কলারশিপ নিয়ে উচ্চশিক্ষার সুযোগ সম্পর্কে আলোচনা। আপনারা সবাই ভালো থাকুন সুস্থ থাকুন এই কামনায় আজকের মত শেষ করছি। আর আপনারদের কেমন পোষ্ট পছন্দ তা আমাদেরকে কমেন্ট করে জানান। আল্লাহ হাফেজ