চীনে ছাত্র অবস্থায় উপার্জন করার উপায়

0
183
চীনে ছাত্র অবস্থায় উপার্জন করার উপায়
চীনে ছাত্র অবস্থায় উপার্জন করার উপায়

চীন উচ্চশিক্ষার জন্য বাংলাদেশি শিক্ষার্থীদের আগ্রহের একটি দেশ। চীনে পার্ট টাইম করার কোন নিয়ম নেই।। কিন্তু ছাত্র অবস্থায় চীনে উপার্জন করার উপায় রয়েছে অনেক। সে সব উপায়ে আমরা চীনে ছাত্র অবস্থায় টাকা আয় করতে পারবো। কিভাবে ছাত্র অবস্থায় চীনে টাকা ইনকাম করা যায় ও উপার্জন করার উপায় নিয়ে আজকের আলোচনা। চলুন শুরু করা যাক-

উচ্চশিক্ষার জন্য চীন কেমন

উচ্চশিক্ষার জন্য শিক্ষার্থী বাহিরের যে সব দেশে গমন করে তার মধ্যে অন্যতম দেশ হলো চীন। চীনে এত বেশি শিক্ষার্থী যাওয়ার অনেক বেশি কারন আছে। সে বিষয়ে আলোচনা করতে গেলে প্রথমেই আসে উন্নত শিক্ষা ব্যবস্থা। সেখানে রয়েছে শিক্ষার জন্য সুন্দর পরিবেশ ও বন্ধুভাবাপন্ন সংস্কৃতি। এই সব দিক বিবেচনা করলে চীনে উচ্চশিক্ষার ব্যপারে আগ্রহ বাড়বেই। অনেক শিক্ষার্থী আছে যারা পর্যাপ্ত অর্থের অভাবে তাদের নির্দিষ্ট দেশে গিয়ে উচ্চ শিক্ষা লাভ করতে পারে না।

এক্ষেত্রে শিক্ষার্থীরা চিন্তা করে থাকে পড়াশুনার পাশাপাশি তারা কোন কাজ করতে পারবে নাকি। এক্ষেত্রে চীন ও সহায়তা করে যেন শিক্ষার্থীরা তাদের লক্ষ্য অর্জন এ সফল হয়। এক্ষেত্রে শিক্ষার্থীর মনে প্রশ্ন আসে যে চীনে এমন কি কি কাজ আছে যা পড়াশুনার পাশাপাশি করা যায় এবং ভাল একটা অর্থ উপার্জন করা যায়।  যেন সেই উপার্জন দিয়ে তার থাকা খাওয়া বা টিউশন ফি সে দিতে পারে।

আজকে আমরা আলোচনা করবো যে চীনে বিদেশি শিক্ষার্থীরা কি কি উপায়ে উপার্জন করতে পারে।আমরা সবাই জানি ইউরোপ বা আমেরিকান দেশে যেভাবে শিক্ষার্থীরা উপার্জন করে থাকে যেমন পার্ট টাইম জব, সেভাবে চীনে সে কাজ করতে পারবে না। যেমন ইউরোপের দেশগুলোতে শিক্ষার্থীরা নিয়ম মেনে রেস্টুরেন্ট এ পার্ট টাইম জব করে থাকে কিন্তু চীনে একজন শিক্ষার্থী এইভাবে পার্ট টাইম জব করতে পারবে না। এরকম ভাবে কাজ করার কোন নিয়ম নেই চীনে।

কিন্তু এখন আমাদের শিক্ষার্থীর মনে প্রশ্ন আসে যে তাহলে আমরা চীনে ছাত্র অবস্থায় কিভাবে আমি উপার্জন করতে পারি? হ্যা এটা সত্য যে চীনে কোন বিদেশি শিক্ষার্থী পার্ট টাইম কোন রেস্টুরেন্ট এ জব বা এই সম্পর্কযুক্ত জব করতে পারবে না কিন্তু এখানে বিভিন্ন উপায়ে যে কোন শিক্ষার্থী একটা ভাল মানের টাকা উপার্জন করতে পারবে। এবং সেই উপার্জনের টাকা দিয়ে সে নিজের থাকা খাওয়া এবং টিউশন ফি দিতে পারবে। কিভাবে চীনে ছাত্র অবস্থায় উপার্জন করা যায় তা নিচে দেওয়া হল

চীনে শিক্ষকতা করে ছাত্র অবস্থায় উপার্জন

চীনে অবস্থানরত বিদেশি ছাত্র ছাত্রী যারা ইংরেজিতে ভালো তারা এখানে শিক্ষকতা করতে পারেন। যারা ইংরেজিতে ভালো তাদের জন্য ইংরেজিতে টিচিং করার ভালো কিছু সুযোগ রয়েছে। আপনি অনলাইলে ইংরেজি শেখাতে পারেন আর চাইলে অফলাইনেও ইংরেজি শিখাতে পারেন। আপনি বিভিন্ন স্কুলে ইংরেজি শেখাতে পারেন কিছু ঘন্টা করে।

এখান থেকে আপনি ভালো একটা অর্থ উপার্জন করতে পারবেন। যেমন ধরেন প্রতি ক্লাস এ আপনাকে তারা ২০০ থেকে ৩০০ আরএমবি এর মতো অর্থাৎ প্রায় ৪ হাজার টাকা করে দিবে। এটা হলো আপনার প্রতি ঘন্টার আয়। আপনি সপ্তাহে ১০ ঘন্টা কাজ করলে বুঝতেই পারছেন। আপনি ইংরেজিতে ভালো হলে চীনে পড়া শুনার পাশাপাশি এই এই ইংরেজি শিখাতে পারেন। চীনে ইংরেজি শেখানো একটা খুব ভাল উপায়।

চীনে ফটোগ্রাফি করে আয়

ছবি তোলা একটি ক্রিয়েটিভ কাজ। আপনার যদি ফটো তুলতে খুব পছন্দ করেন তাহলে আপনি ফটোগ্রাফি দিয়ে অর্থ উপার্জন করতে পারবেন। আপনি যদি ফটো ভালো তুলতে পারেন তাহলে আপনি এটাকে অর্থ উপার্জনের উপায় বানিয়ে নিতে পারেন। এজন্য আপনাকে মোটা মুটি পরিচিত হতে হবে। কিছু মানুষকে আপনাকে চিনতে হবে। যারা আপনাকে ফটোগ্রাফির ক্লায়েন্ট এর খবর দিবেন। যারা ছবি পোর্টেইড করতে চায় তাদের আপনি পোর্টেইড ছবি করে দিবেন। এজন্য আপনাকে তারা ৮০০ আরএমবি এর মত অর্থ দিবে। যা বাংলাদেশে ৯০০০ টাকার চেয়ে কিছুটা বেশি।

এইভাবে আপনারা কাস্টমারের সাথে দিন তারিখ ঠিক করে ফটোসুট করে অর্থ উপার্জন করতে পারেন। এছাড়াও আপনারা নিউজ এজেন্সি ম্যাগাজিন এদের কাছে আপনার তোলা ফটো বিক্রি করে আয় করতে পারেন। এক্ষাত্রে আপনাকে প্রতি ফটোর জন্য ৫০ আরএমবি এর মতো দিয়ে থাকবে যা প্রায় ৬০০ টাকার মত। এটা বেশ বড় অংকের টাকা যা কিনা আপনি একটি ছবির জন্য পাচ্ছেন। এই ফটোগ্রাফি নিয়ে চীনে বড় একটা মার্কেট প্লেস আছে যেখানে আপনি অনলাইনেও ছবি তুলে বিক্রি করতে পারবেন। তবে আপনাকে ফটো তুলতে পারদর্শী হতে হবে। কারন ভালো ছবি ছাড়া তারা আপনার ফটো কিনবে না। এইভাবেও আপনি চীনে ছাত্র অবস্থায় উপার্জন করতে পারবেন।

কন্টেন্ট রাইটিং । ছাত্র অবস্থায় চীনে টাকা ইনকাম

কন্টেন্ট রাইটিং খুব একটা ভাল উপায় চীনে শিক্ষার্থী অবস্থায় অর্থ উপার্জন করার জন্য। আপনি যদি ভাল কন্টেন্ট রাইটার হন তাহলে আপনি বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যমে বিভিন্ন সংবাদের লিখনির মাধ্যমে টাকা উপার্জন করতে পারবেন। কন্টেন্ট রাইটিং এর জন্য অনেক জায়গা আছে যেখানে আপনি সপ্তাহে কিছু ঘন্টা করে লিখে আয় করতে পারবেন। প্রতি ৭০০ শব্দের কন্টেন্টের জন্য আপনাকে প্রায় ৫০০ আরএমবি দিয়ে থাকবে। কন্টেন্ট রাইটিং খুবই ভালো একটা উপায় টাকা উপার্জনের জন্য। কিন্তু আপনাকে কন্টেন্ট লিখতে হবে ইংরেজিতে। এক্ষেত্রে আপনার ইংরেজিতে খুব ভাল দক্ষতা থাকতে হবে। লেখার স্কিল আপনার থাকতে হবে খুবই উচ্চমানের। এই উপায় অবলম্বন করে আপনি ছাত্র অবস্থায় চীনে টাকা ইনকাম করতে পারবেন।

মডেলিং করে পড়াশোনার পাশাপাশি উপার্জন

অনেকের মনে প্রশ্ন হবে চীনে পড়াশুনার পাশাপাশি মডেলিং করেও কি উপার্জন করা যায়? আর মডেলিং করেই যদি উপার্জন করা যায় তাহলে কিভাবে করবো? আমি তো দেখতে সুদর্শন নই। হ্যা মডেলিং করেও আপনি উপার্জন করতে পারবেন। চীনে অনেক বড় বড় ই কমার্স বিজনেস আছে যেখানে অনেক ধরনের পন্য ক্রয় বিক্রয় করা হয়। ইকমার্স সাইটের পন্যের বিজ্ঞাপনের জন্য কিন্তু অনেক মডেল দরকার। তাই বলায় যায় যে এখানে মডেল হিসেবে কাজ করার জন্য অনেক বেশি সুযোগ রয়েছে। মডেলিং এর জন্য যে আপনাকে অনেক বেশি সুন্দর দেখতে হবে তেমনটা নয় মোটামুটি ড্রেসিং সম্পর্কে ধারনা থাকলে আপনি মডেল হিসেবে পার্ট টাইম জব করতে পারবেন। আপনাকে ভালো ভালো পোজ জানতে হবে মডেলিং এর জন্য। এভাবেও আপনি চীনে ছাত্র অবস্থায় উপার্জন করতে পারবেন।

দোভাষী কাজ করে চীনে ছাত্র অবস্থায় টাকা আয়

এক্ষেত্রে আপনাকে দোভাষীদের মত কাজ করতে হবে। আপনাকে চাইনিজ ভাষা থেকে ইংরেজি এবং ইংরেজি থেকে চাইনিজ ভাষায় রুপান্তর করে বুঝাতে হবে। এক্ষেত্রে আপনি বিভিন্ন ওয়েবসাইটে এই ট্রান্সলেশন এর কাজ করে ভাল একটা উপার্জন করতে পারবেন। তাছাড়া আপনি বিভিন্ন দর্শ্নার্থীদের বিভিন্ন জিনিস সম্পর্কে তথ্য বলে দিয়ে তাদের থেকে টাকা উপার্জন করতে পারবেন। এভাবেও চীনে ছাত্র অবস্থায় টাকা আয় করতে পারবেন।

ভয়েস ওভার করে চীনে ছাত্র অবস্থায় আয়

VOICE OVER হলো আপনাকে একটা স্ক্রিপ্ট দেয়া হবে এটা হতে পারে বিভিন্ন বইএর জন্য হতে পারে কোন সর্ট ফিল্ম এর জন্য বা বিভিন্ন পন্যের জন্য। আপনাকে সেই স্ক্রিপ্ট সুন্দর করে পড়তে হবে। কোথায় থামতে হবে কোথায় একটু জোরে কথা বললে সুন্দর শোনাবে সে ক্ষেত্রে লক্ষ্য রেখে আপনাকে পড়তে হবে। এখানে প্রতি স্ক্রিপ্ট এর জন্য প্রায় ১০০ আরএমবি প্রদান করা হবে। এভাবেও আপনি VOICE OVER পার্ট টাইম কাজ করে চীনে ছাত্র অবস্থায় উপার্জন করতে পারবেন।

ইন্টারন্যাশনাল স্টুডেন্ট অফিসে কাজ করে উপার্জন

এই INTERNATIONAL STUDENT OFFICE এ আপনি পার্ট টাইম জব করতে পারবেন। এই কাজটি খুবই প্রচলিত একটি কাজ। এখানে আপনাকে নতুন শিক্ষার্থীদের বিভিন্ন তথ্য দিতে হতে পারে। পুরাতন শিক্ষার্থীদের কিছু সমস্যা সমাধান করতে হতে পারে। INTERNATIONAL STUDENT OFFICE এ বিভিন্ন রকমের কাজ হতে পারে।

যেমন- আপনাকে ফোন কল করে কোন স্টুডেন্ট কে বিভিন্ন আপডেট সম্পর্কে জানাতে হতে পারে। হতে পারে  আপনাকে কন্টেন্ট ও লিখতে হবে শিক্ষার্থীদের জন্য। তাদের বিভিন্ন নোটিশ লিখতে হবে বা তাদের এই নোটিশ সম্পর্কে অবগত করতে হতে পারে। INTERNATIONAL STUDENT OFFICE এ কাজ করলে তাকে খুব বেশী একটা টাকা দেয়া হয় না। হতে পারে সেটা মান্থলি ১৫০০ আরএমবি। এটা নির্ভর করে ইউনিভার্সিটি টু ইউনিভার্সিটি এর উপর।

এই সব উপায়ে আপনি কাজ করে চীনে ছাত্র অবস্থায় উপার্জন করতে পারেন। তাছাড়া আরো একটি উপায়ে কাজ করতে পারেন সেটা হল ব্যবসার সাথে সংযুক্ত হয়ে। আপনি বিভিন্ন সংস্থায় দূত হিসেবে কাজ করতে পারবেন।

চীনে ছাত্র অবস্থায় উপার্জন পার্ট টাইম জব হিসেবে আপনি এই সব উপায়ে কাজ করে ছাত্র অবস্থায় উপার্জন করতে পারবেন। উচ্চশিক্ষা অর্জন করে দেশকে উন্নতশীল রাষ্ট্র করার প্রত্যয় নিয়ে এগিয়ে যাওয়া শিক্ষার্থীদের জানাই অগ্রিম অভিনন্দন।

আপনি চাইলে পড়তে পারেন চীনে পড়াশোনার খরচ। ধন্যবাদ