কম খরচে উচ্চশিক্ষা ইউরোপের যেসব দেশে

0
203
ইউরোপের যেসব দেশ গুলোতে কম খরচে পড়াশুনা
ইউরোপের যেসব দেশ গুলোতে কম খরচে পড়াশুনা

বন্ধুরা আপনারা সবাই কেমন আছেন? আশা করি ভালো আছেন। আপনাদের অজানা বিষয় নিয়ে আজকে আমরা আলোচনা করবো। আজকের আলোচনার বিষয় ইউরোপের যেসব দেশ গুলোতে কম খরচে উচ্চশিক্ষা লাভ করা যায়। অনেকে আমাদের কমেন্ট করে জানিয়েছেন যে ইউরোপের কোন কোন দেশে কম খরচে অর্থাৎ নাম মাত্র টিউশন ফি দিয়ে উচ্চশিক্ষা লাভ করা যায়। আজকে আমরা আলোচনা করবো ইউরোপের যে দেশ গুলোতে কম খরচে পড়াশোনা তথা উচ্চশিক্ষা লাভ করা যায়। চলুন শুরু করা যাক-

ইউরোপের যেসব দেশ গুলোতে কম খরচে উচ্চশিক্ষা

পৃথিবীর বিভিন্ন দেশে হাজার হাজার বিশ্ববিদ্যালয় আছে। সেখানে অনেক বিষয়ে পড়াশোনা করানো হয়। কিন্তু আমাদের মাঝে অনেকেই আছে যারা কোন একটি নির্দিষ্ট বিষয়ে জানতে চায় বা উচ্চশিক্ষা নিতে চায়। বাংলাদেশের শিক্ষার্থীর যথেষ্ট যোগ্যতা থাকা সত্বেও আমাদের উচ্চ শিক্ষার সেই স্বপ্ন পূরণ হয় না।

আমাদের দেশের আসন সংখ্যার সংকট ও বিদেশযাত্রায় কড়াকড়ি ও মোটা অংক ব্যয়ের কথা ভেবে অনেকেরই উচ্চশিক্ষার সেই স্বপ্নকে বাস্তবে রুপ দেওয়া সম্ভব হয় না। কিন্তু বিদেশে উচ্চশিক্ষার কথা উঠলেই আমাদের মাথায় যে কথাটি ঘোরপাক খায় তা হল মোটা অংকের অর্থ।

নাকি মেধাবী শিক্ষার্থীদের জন্য কোন পথ আছে? শিক্ষা ও অর্থনীতিতে যেসন দেশ উন্নত সেখানে মেধাবীদের জন্য  উচ্চশিক্ষার ক্ষেত্রে অনেক সুযোগ প্রদান করে থাকে সেই দেশের রাষ্ট্র। এই সব মেধাবীদের জন্য ইউরোপের বিভিন্ন দেশ সল্প খরচে এমনকি বিনা মুল্যে উচ্চশিক্ষার অফার করে থাকে।

আজকে আমরা জানবো ইউরোপের এমন কয়েকটি দেশ যারা উচ্চশিক্ষার ক্ষেত্রে সল্প খরচে বা বিনামুল্যে শিক্ষা প্রদান করে। যেখানে কোন একটি বিষয়ে উচ্চশিক্ষা গ্রহন করতে নাম মাত্র টিউশন ফি অথবা কম খরচে পড়াশোনা করে লালিত স্বপ্নকরে বাস্তবায়ন করা যাবে।

ফ্রান্সে কম খরচে পড়াশোনা

ইউরোপের যেসব দেশ গুলোতে কম খরচে পড়াশোনা করা যায় তার মধ্যে ফ্রান্স অন্যতম। ফ্রান্স খরচের দিক থেকে ইউরোপের যে দেশগুলোতে উচ্চশিক্ষা নিতে গেলে তালিকায় প্রথমে আসে ফ্রান্স। ফ্রান্সের নাম শুনে অনেকে অবাক হয়েছেন। অবাক হওয়ার কিছু নেই। হ্যা ফ্রান্সে সল্প টিউশন ফি এবং কম খরচে  উচ্চশিক্ষা লাভ করতে পারেন।

তবে ফ্রান্সে ব্যাচেলর প্রোগ্রামে বেশির ভাগ লেকচারই দেয়া হয় ফ্রান্সের ভাষা অর্থাৎ ফ্রেঞ্চ ভাষাতে। তাই যারা ফরাসি ভাষা যানেন তারাই সুযোগ পাবেন বিনা টিউশন ফিতে এই দেশটিতে উচ্চশিক্ষা গ্রহন করতে। সরকারী বিশ্ববিদ্যালয় গুলোতে কিছু খরচ রয়েছে কিন্তু তা খুবই কম। ইউরোপের এই দেশ এ কম খরচে উচ্চশিক্ষা অর্জন করতে পারবেন।

সেটা হিসেব করলে দাঁড়ায় বছরে ২০০ ইউরো এর চেয়ে কম। সুতরাং ফ্রান্সে উচ্চশিক্ষা অর্জন করতে চাইলে ফরাসি ভাষার কোর্স করে নিতে হবে। আপনি চাইলে ফ্রান্সে গিয়েও ভাষা শিখে বিনা টিউশন ফি এবং কম খরচে আপনার কাংক্ষিত বিষয়ে উচ্চ শিক্ষা লাভ করতে পারেন।

এছাড়াও ফ্রান্সে মাস্টার্স ও ব্যাচেলর পর্যায়ে ইংরেজিতে উচ্চশিক্ষার সুযোগ রয়েছে। এক্ষেত্রে আপনার টিউশন ফি লাগবে। প্যারিসে অন্যান্য শহরের তুলনায় থাকা খাওয়ার খরচ অনেক বেশি। প্যারিস ছাড়া অন্য যে কোন শহরে থাকা খাওয়ার খরচ অনেক কম।

ফ্রান্সে বার্ষিক ৮০০০ ডলার দিয়ে আপনার থাকা খাওয়ার ব্যবস্থা হয়ে যাবে। এমনকি এই খরচ দিয়েই আপনি ফ্রান্সের বিভিন্ন ঐতিহাসিক স্থান গুলো ঘুরে দেখতে পারবেন। ইউরোপের এই দেশ এ কম খরচে উচ্চশিক্ষা লাভ করতে পারবেন।

জার্মানিতে কম খরচে শিক্ষালাভ

জার্মানি এক সময়ে বিশ্বের অন্যতম পরাশক্তির দেশ ছিল। এখন জার্মানি ক্ষমতার দিক থেকে কম বললে ভুল হবে। দেশটি সামরিক, অর্থনৈতিক অ অন্যান্য খাতের মত শিক্ষাখাতকে অনেক গুরুত্বের সাথে বিবেচনায় নিয়েছে।

সম্প্রতি জার্মানে বিদেশী শিক্ষার্থীর সংখ্যা দিন দিন বাড়ছে। জার্মানিতে বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ুয়া শিক্ষার্থীর মধ্যে বিদেশি শিক্ষার্থীর সংখ্যা ১২ %। এর সংখ্যা বৃদ্ধির অন্যতম কারণ হলো বিশ্বের অন্যতম বিশ্ববিদ্যালয় গুলোতে সল্প ব্যয়ে পড়াশোনার সুযোগ। জার্মানে বিদেশি শিক্ষার্থী বৃদ্ধির আরেকটি কারণ হল পর্যাপ্ত স্কলারশিপ বা বৃত্তি।

এক্ষেত্রে জার্মান সরকার শিক্ষাখাতে তাদের বাজেটের একটি বিরাট অংশ ব্যয় করে থাকে। ঠিক এজন্য জার্মানে খুবই কম খরচে উচ্চশিক্ষা অর্জন করার সুযোগ পাওয়া যায়। তাই বছরে মাত্র ৩৫০০ ডলার লাগবে চার বছরের স্নাতক কোর্স করতে। আপনি যদি সরকারী বা বেসরকারী একটা বৃত্তি পেয়ে  যান তাহলে তো আরো ভালো।

বৃত্তি পেলে আপনি জার্মানিতে থাকা খাওয়ার খরচ ও পেতে যেতে পারেন। তাছাড়া আপনার হাত খরচ ও অনায়াসে চলে যাবে ঐ বৃত্তির টাকা দিয়ে। জার্মানির নামকরা কোন শহরে থেকে পড়তে চাইলে আপনাকে বার্ষিক ১০ থেকে ১২ হাজার ডলার খরচ করতে হবে। ইউরোপের জার্মানিতেও কম খরচে উচ্চশিক্ষা অর্জন করতে পারবেন।

নরওয়েতে কম খরচে উচ্চশিক্ষা

বিশ্বের উন্নত দেশগুলোতে কম খরচে বা বিনামুল্যে উচ্চশিক্ষা লাভ করা যায়। কিন্তু এর মধ্যে নরওয়ে সব থেকে এগিয়ে আছে সল্প খরচে উচ্চশিক্ষা প্রদান করতে। এর অন্যতম কারন হল নরওয়ে  ইউরোপিয় ইউনিয়ন বা বাইরের সকল দেশের শিক্ষার্থীর জন্য প্রায় সকল প্রোগ্রামই পাবলিক ইউনিভার্সিটি গুলো বিনা মুল্যে উচ্চশিক্ষা লাভের সুযোগ দেয়।

বিদেশে অর্থাৎ পৃথিবীর যে কোন দেশে উচ্চ শিক্ষা লাভের ক্ষেত্রে ভাষা জানা খবই গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। কিন্তু এক্ষেত্রে নরওয়ে তাদের বেশির ভাগ বিশ্ববিদ্যালয় গুলোতে ইংরেজিতে পাঠ দান করে থাকে। তাই সকল দেশের শিক্ষার্থীর ক্ষেত্রে নরওয়ের ভাষা জানার প্রয়োজন পরে না। শুধু ইংরেজি ভাষা জানলেই ইউরোপের নরওয়েতে বিভিন্ন বিষয়ে কম খরচে উচ্চশিক্ষা লাভ করা যায়।

নরওয়ের শিক্ষার্থী তথা সাধারন মানুষও এই ইংরেজি ভাষায় পারদর্শী। তবে ব্যাচেলর পর্যায়ে এদেশের বেশিরভাগ প্রোগ্রামই নিজস্ব ভাষা নরওয়েজন ভাষায় পড়ানো হয়। এজন্য কোন বিদেশী শিক্ষার্থী ব্যাচেলর প্রোগ্রাম করতে চাইলে তাকে স্থানীয় ভাষায় দক্ষ প্রমান করতে হবে।

তবে মাস্টার্স ও পি এইচ ডি পর্যায়ের পড়াশোনা সাধারনত ইংরেজি ভাষায় পড়ানো হয়। এছাড়া নরওয়েতে পড়তে আগ্রহ বাড়ার পেছনে আরো কিছু কারন পরিলক্ষিত হয় তা হল এখানকার জীবনযাত্রার মান ও প্রাকৃতিক সৌন্দর্য।

নরওয়েতে পড়াশোনা করার জন্য থাকা খাওয়ার খরচের পরিমান সামান্য বেশি। এখানে থাকার জন্য আপনার খরচ হবে বার্ষিক ১৪ থেকে ১৫ হাজার ডলার। নরওয়েতে পড়ার ক্ষেত্রে আপনি জব করার ও সুযোগ পাবেন। সেটা হবে সপ্তাহে আপনি ২০ ঘন্টা কাজ করতে পারবেন। এজন্য আপনাকে শুধু স্টুডেন্ট রেসিডেন্ট পারমিট সংগ্রহ করে নিতে হবে। ইউরোপের এই দেশ নরওয়েতে কম খরচে উচ্চশিক্ষা অর্জন করতে পারবেন।

পোল্যান্ড এ কম খরচে পড়াশোনা

বিশ্বের যে দেশগুলোতে কম খরচে উচ্চশিক্ষা লাভের সুযোগ দেয়া হয় তার মধ্যে অন্যতম হল পোল্যান্ড। পোল্যান্ডের বিশ্ববিদ্যালয় গুলোর মধ্যে অধিকাংশ বিশ্ববিদ্যালয় গুলোতে পোলিশ ভাষায় পাঠ দান করে থাকে। পোলিশ পোল্যান্ডের সরকারি ভাষা।

পোল্যান্ডের প্রায় ৯৮% লোক পোলীয় ভাষাতে কথা বলে থাকে। তাই আপনি যদি পোলিশ ভাষা ভালোভাবে জানেন তাহলে অন্য সকল শিক্ষার্থীর মত আপনিও সম্পূর্ন বিনামুল্যে পড়াশোনা করতে পারবেন। তাছাড়া বি বি এ কোর্সে পোল্যান্ডে ইংরেজিতে পাঠদান করে থাকে।

এজন্য আপনাকে বার্ষিক ২ থেকে ৩ হাজার ডলার ব্যয় করতে হবে। এছাড়াও অনেকে পোল্যান্ডে উচ্চশিক্ষা অর্জন করতে চায় তাদের এখানে আসার মূল অনুপ্রেরণা যোগায় এখানকার সমৃদ্ধ সাহিত্য ও সংস্কৃতির। আপনাকেও আকর্ষন করবে এ দেশের সংস্কৃতি। ইউরোপের এই পোল্যান্ড দেশ এ কম খরচে উচ্চশিক্ষা অর্জন করতে পারবেন।

বেলজিয়াম এ কম খরচে শিক্ষালাভ

বেলজিয়ামের নাম দেখে অনেকেই হতবাক হয়েছেন নিশ্চয়। তাছাড়া আপনি হয়তো ভাবছেন আপনি স্বপ্ন দেখছেন নাতো? না একদমই না আপনি ঠিকই দেখেছেন। বেলজিয়াম সরকার তাদের শিক্ষাখাতকে আরো উন্নত করার জন্য তাদের বাজেটের একটি অংশ শিক্ষাখাতে ব্যয় করে। তারা কম খরচে শিক্ষাদান করে থাকে।

সাধারন নিয়মে আন্তর্জাতিক শিক্ষার্থীদের উচ্চশিক্ষার জন্য বেলজিয়ামের প্রতি বছর টিউশন ফি মাত্র ৪১৭৫ ইউরো। কিন্তু যেসব দেশ জাতিসংঘের তালিকায় সল্পোন্নত সেই সকল দেশের শিক্ষার্থীদের টিউশন ফি দিতে হবে মাত্র বার্ষিক ৯০৬ ইউরো।

তবে ইউনিভার্সিটি ও বিষয় এর ক্ষেত্র বিশেষে এই টিউশন ফি আর একটু সামান্য বেশি হয়ে থাকে। ভাগ্যক্রমে কিংবা দুর্ভাগ্যক্রকে আমরা জাতিসংঘের এই তালিকায় পরে গেছি। আর এ জন্যই আমরাও চাইলে উচ্চ শিক্ষার জন্য বেছে নিতে পারি ইউরোপের এই পোলান্ড দেশটিকে। ইউরোপের এই বেলজিয়াম দেশ এ কম খরচে উচ্চশিক্ষা লাভ করার সুযোগ রয়েছে।

ইউরোপের এইসব দেশ গুলোতে কম খরচে পড়াশোনা অর্থাৎ উচ্চশিক্ষা অর্জন করা যায়। ইউরোপের এই সব দেশ ছাড়াও আরো অনেক দেশ আছে যেখানে সল্প খরচে আমরা আমাদের স্বপ্ন উচ্চশিক্ষায় শিক্ষিত হওয়ার স্বপ্ন বাস্তবায়ন করতে পারি। আপনারা সকলে ভালো থাকুন সুস্থ থাকুন। আল্লাহ হাফেজ।