ইতালিতে উচ্চ শিক্ষার বিস্তারিত তথ্য

0
188
ইতালিতে উচ্চ শিক্ষার বিস্তারিত তথ্য
ইতালিতে উচ্চ শিক্ষার বিস্তারিত তথ্য

আসসালামু আলাইকুম। আমার প্রিয় পাঠক বন্ধুরা আপনারা সবাই কেমন আছেন? আশা করি আপনারা সবাই ভালো আছেন। আজ আমি আপনাদের কাছে এসেছি ইতালিতে উচ্চ শিক্ষার বিস্তারিত তথ্য নিয়ে। তাহলে বন্ধুরা চলুন শুরু করা যাক-

ইতালিতে উচ্চ শিক্ষার বিস্তারিত তথ্য

আপনি কি আপনার ক্যারিয়ার নিয়ে ভাবছেন। আপনি কি বিদেশে উচ্চ শিক্ষা নিতে আগ্রহী। আর আপনি কি জানতে চান? যে কে কিভাবে বিদেশে নাম করা বিশ্ববিদ্যালয় গুলোতে বৃত্তি বা স্কলারশিপ নিয়েছে, তারা কিভাবে আবেদন করেছেন, কি প্রক্রিয়া অনুসরন করেছেন তা জানতে চান? তারা কিভাবে বিদেশে উচ্চ শিক্ষার জন্য আপনার দেশ থেকে চলে গিয়েছেন তা জানতে চান? তাহলে বন্ধুরা ইতালিতে উচ্চ শিক্ষার বিস্তারিত তথ্য গুলো সম্পর্কে ভালভাবে জেনে নিন আর সেগুলো সঠিক ভাবে প্রয়োগ করে ইতালিতে উচ্চ শিক্ষার জন্য চলে যান।

ইতালি হচ্ছে ইউরোপের মধ্যে সবচেয়ে বড় শিক্ষার স্থান। তাই এখানে হাজার হাজার শিক্ষার্থী পারি জমায় তাদের জ্ঞান পিপাসা মেটানোর জন্য। আর আপনিও যদি সেই পথের পথিক হতে চান। তাহলে আপনিও জেনে নিন ইতালিতে পারি জমানোর সব খুটিনাটি বিষয়। আর এখনি করে ফেলুন নিজেই নিজের আবেদন। আর আবেদন করার আগে আপনাকে ইতালিতে উচ্চ শিক্ষার বিস্তারিত তথ্য সম্পর্কে সঠিক ভাবে জানতে হবে তা নিচে আলোচনা করা হল।

১। কোর্স বা সেমিস্টারঃ

ইতালিতে উচ্চ শিক্ষার বিস্তারিত তথ্য জানাতে প্রথমে আলোচনা করবো কোর্স নিয়ে। ইতালিতে অনেক সরকারি ও বেসরকারী বিশ্ববিদ্যালয় রয়েছে। এই বিশ্ববিদ্যালয় গুলোতে ইংরেজী বা ইতালি দুই ভাষায় শিক্ষা দেওয়া হয়ে থাকে। আপনি যদি ইতালি ভাষা জেনে না থাকেন তাহলে আপনি অবশ্যই ইংরেজী ভাষার কোর্স সম্পন্ন করবেন। ইতালিতে মোট ৫৮ টি সরকারি ও ১৭ টি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় রয়েছে। এই সব বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়েব সাইট ভিজিট করে নিজের কোর্স চয়েস করে admission অফিসে ইমেল করে সব তথ্য ভালো ভাবে জেনে নেবেন। এখানে বছরে সাধারনত ২ টি কোর্স অফার করা হয়ে থাকে। তা হল..

প্রথম সেমিস্টার শুরু হয়ঃ সেপ্টেম্বর থেকে অক্টোবর আর শেষ হয় জানুয়ারি থেকে ফেব্রয়ারি মাসে।
পরবর্তিতে দ্বিতীয় সেমিস্টার শুরু হয়ঃ ফেব্রয়ারি মাসে আর শেষ হয় জুলাই মাসে।
তবে বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্ষেত্রে পরিবর্তন হতে পারে। এজন্য আপনি বিশ্ববিদ্যালয় গুলোর ওয়েব সাইট ভাল করে জেনে শুনে তার পর আপনি আপনার কোর্স বেছে নেবেন।

২। ভাষাগত যোগ্যতাঃ

ইতালিতে উচ্চ শিক্ষার বিস্তারিত তথ্য এর পরের বিষয় হল ভাষাগত যোগ্যতা। বর্তমানে ইতালিতে ভিসার জন্য IELTS 6 ground score প্রয়োজন। অন্যদিকে ইতালিও ভাষা কমপক্ষে p2 লেবেল ইউরোপাস ভাষার বাস্তব শ্রেণী বিভাগ প্রয়োজন। কারন b2 লেবেলে পাস করলে ইতালিতে গিয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ে আপনাকে আবার পরীক্ষায় বসতে হবে। কিন্তু আপনি যদি c2 লেবেলে পাস করেন তাহলে আপনাকে আর কোন পরীক্ষার জন্য বসে থাকতে হবে না।

৩। টিউশন ফিঃ

ইতালিতে টিউশন ফি অন্যান্য দেশের তুলনায় অনেক কম হওয়ায় অনেক শিক্ষার্থী এই দেশকে উচ্চ শিক্ষার দেশ হিসাবে মনে করেন। ইতালিতে প্রতি বছর পড়াশুনা বাবদ আপনাকে ১৮০০- ৮০০০ ইউরো ডলার খরচ করতে হবে। বিশ্ববিদ্যালয় ও কোর্স করতে আপনার এই খরচ বাড়তে বা কমতে পারে। আর আপনি যদি বেসরকারী বিশ্ববিদ্যালয় গুলোতে পড়তে যান তাহলে আপনাকে একটু বেশি খরচ করতে হবে। তাই আমরা সবাই চেষ্টা করবো সরকারী বিশ্ববিদ্যালয় গুলোতে।

৪। স্কলারশিপঃ

ইতালিতে উচ্চ শিক্ষার বিস্তারিত তথ্য এর মধ্যে মজার জিনিস হল স্কলারশিপ। ইতালিতে অনেক ধরনের স্কলারশিপের সুযোগ রয়েছে। সরকারী সহ বিভিন্ন স্কলারশিপের বিভিন্ন অনুদান দেওয়া হয়ে থাকে। তাই আপনারা সবাই নিজের অবস্থানের কথা চিন্তা করে, চেষ্টা করবেন স্কলারশিপের জন্য। কারন part time job করে পরাশুনার খরচ চালানো খুবই কঠিন। স্কলারশিপের তথ্য জানতে আপনি, বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়েব সাইটে গিয়ে স্কলারশিপ সেকশনে এর বিস্তারিত তথ্য জানতে পারবেন।

৫। আবেদন কিভাবে করবেনঃ

ইতালিতে ব্যাচেলর করতে গেলে আপনাকে কমপক্ষে এস,এস, সি পাস করতে হবে। আর আবেদনের সময় আপনাকে কলেজ থেকে testimonial বা প্রসংসা পত্র নিতে হবে। আপনার মার্স্টাস প্রগামের জন্য ব্যচলোর ডিগ্রীধারি আর পি এইচ ডি প্রগ্রামের জন্য মাস্টার্স ডিগ্রীধারি শেষ করতে হবে। ইতালিতে পড়াশুনার জন্য আপনাকে আপনার পছন্দের বিশ্ববিদ্যালয় বেছে নিতে হবে। তারপর ফর্ম পূরন করে ঐ বিশ্ববিদ্যালয়ে ইমেলের মাধ্যমে পাঠিয়ে দিতে হবে এবং আপনি পড়ার যোগ্য কিনা তা যাচাই করে নিতে হবে।

তারপর embassy তে গিয়ে pre application request করতে হবে এবং ভর্তির আবেদন সহ সব কাগজপত্র জমা দিতে হবে। পরে embassy সেই আবেদন আপনার পছন্দের বিশ্ববিদ্যালয়ে পাঠিয়ে দেবে এবং পরে আপনাকে রেজাল্ট জানিয়ে দেওইয়া হবে। বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের কাগজপত্র বিভিন্ন ধরনের হয়ে থাকে।

প্রয়োজনীয় ডকুমেন্টঃ

ক) মাধ্যমিকের সব সার্টিফিকেট।
খ) মার্কশীট।
গ) পাসপোর্ট সাইজের ছবি।
ঘ) সিভি।
জ্ঞ) রিকোমেন্ডশন letter and মোটিভেশন letter।
চ) IELTS/ TOFFL TEST SCORE।
ছ) বিশ্ববিদ্যালয়ের আবেদন পত্র।

তারপর এই কাগজ পত্র গুলো International Organization for Migration (IOM) এর মাধ্যমে সব কাগজপত্র ভেরিফিকেশন করাতে হবে। তবে এই বিষয়ে আপনার কোন চিন্তার কারন নেই, কেননা সব দেশেই এর অফিস রয়েছে।

৬। ব্যাংকঃ

ইতালিতে আপনি পড়াশুনার খরচ চালাতে পারবেন সেই পরিমান টাকা আপনাকে ব্যাংকে জমা রাখতে হবে। এর জন্য আপনাকে ব্যাংকে ৮০০০-১২০০০ হাজার ইউরো জমা দেখাতে হবে। যদি আপনি এই পরিমান টাকা জমা দেখাতে পারেন। তাহলে আপনি ইতালি যেতে পারবেন।

৭। ভিসা আবেদনঃ

ইতালিতে উচ্চ শিক্ষার বিস্তারিত তথ্য এর মধ্যে ভিসা আবেদন অন্যতম। ইতালিতে সাধারনত তিন ধরনের student ভিসা অফার করে থাকে। তা হলো-

ক) student ভিসা সাব ক্লাস ৫০০ঃ এই ৫-৬ বছরের ভিসায় কোন স্পন্সরের দরকার পরে না। আর এই ভিসা পেলে আপনি ইতালিতে Part time job করতে পারবেন।

খ) student গার্ডিয়ান ভিসা সাব ক্লাস ৫৯০ঃ এই ভিসায় শিক্ষার্থীরা আবেদন করতে পারে কিন্তু এজন্য তাদের ৩০-৩৫ হাজার টাকা খরচ করতে। এজন্য আপনাকে ব্যাংকে যথেষ্ট পরিমান টাকা দেখাতে হবে এবং পরিবারের যে কাউকে আগে থেকে ইতালির অধিবাসি হতে হবে। যদি আপনার বয়স ২১ বছরের বেশি হয় তাহলে আপনি এই ভিসার জন্য আবেদন করতে পারবেন। আর আপনি চাইলেই এই ভিসায় part time job করতে পারবেন।

গ) স্পেশাল ক্যাটাগরী student ভিসা সাব ক্লাস ৪৪৪ঃ ইতালিতে এই ভিসা দিয়ে চাকরী করা থেকে শুরু করে অন্যান্য সুযোগ সুবিধা ভোগ করতে পারবেন। যেমন, এই ভিসার কোন মেয়াদ থাকে না,আপনার আবেদনের কোন খরচ পরবে না।আর আপনাকে এই ভিসা পেতে হলে আপনার পরিবার কে আগে থেকে ইতালির অধিবাসি হতে হবে।

আপনি কোন ধরনের ভিসা নিয়ে ইতালি যাবেন তা নির্বাচন করে সেই ফর্মে embassy  এর ওয়েব সাইট থেকে ডাউন লোড করে তা পূরন করতে হবে। supported document দিয়ে embassy তে জমা দিতে হবে। আবার কোন কোন বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্ষেত্রে supported document স্কান করে জমা দিতে হয়।

ভিসা আবেদনের জন্য ডকুমেন্টঃ

ক) ৪ কপি পার্সপোট সাইজের ছবি।
খ) অফার লেটার।
গ) সব সার্টিফিকেট এবং মার্কশীট।
ঘ) IELTS/ TOFFL সার্টিফিকেট।
জ্ঞ) আবেদন পত্র।
চ) ব্যাংক হিসাবের কাগজপত্র।
ছ) ভিসা আবেদন পত্র।
আর এই ভিসার জন্য সময় লাগতে পারে ৯০-১২০ দিন।

৮। জীবন যাত্রার ব্যয়ঃ

ইতালিতে উচ্চ শিক্ষার বিস্তারিত তথ্য এর মধ্যে ব্যয় না রাখলে কি হয়? ইতালিতে আবাসন খাতে আপনাকে খরচ করতে হবে ৩০০- ১০০০ হাজার ইউরো। আর থাকা খাওয়া সব মিলিয়ে খরচ করতে হবে ১০০০-১৫০০ ইউরো। এই দেশের বিশ্ববিদ্যালয়ে থাকার কোন আলদা ব্যবস্থা নেই। তবে আপনার চিন্তার কোন কারন নেই, কেননা প্রতিটি বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষার্থীদের আবাসন খোজার জন্য আলাদা অফিস রয়েছে। এই অফিস থেকে কম খরচে আপনাকে থাকার জন্য ব্যবস্থা করে দেবে।

৯।পার্ট টাইম জবঃ

এখানে আপনি সপ্তাহে ২০ঘন্টা job করতে পারবেন। কিন্তু এখন এই job পাওয়া খুব কঠিন হয়ে পরেছে। এজন্য আপনাকে ইতালির ভাষা এবং কাজের দক্ষতা অর্জন করতে হবে। তাহলে আপনাকে কাজ পেতে সাহায্য করবে।

১০। PR বা নাগরিকত্বঃ

ইতালিতে full time কাজের সনদ জমা দিয়ে আপনি স্টুডেন্ট ভিসা থেকে PR বা নাগরিকত্ব ক্যাটাগরিতে ভিসা পরিবর্তন করতে পারবেন। আর এই কাজটা একটু সময় নিয়ে করতে হয়। এজন্য আপনাকে ১-২ বছর সময় লাগতে পারে। এই PR পাওয়ার পর আপনি যদি নাগরিকত্ব পেতে চান তাহলে বৈধ ভাবে আপনাকে ১০ বছর থাকতে হবে।

বন্ধুরা এই ছিল আজকের আলোচনা ইতালিতে উচ্চ শিক্ষার বিস্তারিত তথ্য । আশা করি ইতালিতে উচ্চশিক্ষা নিয়ে আপনি আপনার জীবন গড়তে পারবেন। আর আমার পক্ষ থেকে রইলো আপানার জন্য শুভ কামনা।

আবার আসবেন। ধন্যবাদ